ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

how to earn kg money in home!!

বিবিধ ডেস্ক
how to earn kg money in home!!
Advertisement (Adsense)

শুধু এদেশে নয়, বিদেশেও বহু মানুষ দশটা-পাঁচটা চাকরি করেন না। বাড়িতে বসেই নানা রকম কাজ করে টাকা উপার্জন করেন এবং সেই টাকা নেহাত কম নয়।

১) স্কুল প্রজেক্ট মেকার— ক্রাফট এবং ড্রয়িংয়ে ভাল হলেই অনায়াসে এই কাজ করতে পারেন। এর জন্য প্রয়োজন একটি কম্পিউটার, প্রিন্টার-স্ক্যানার-কপিয়ার এবং একটি স্পাইরাল বাইন্ডিং মেশিন। তৃতীয়টি না থাকলেও অসুবিধে নেই। একটু আগে থেকে হাতে কাজ নেবেন এবং বাইরে থেকে করিয়ে নেবেন। 

২) অ্যাড ক্লিক— ইন্টারনেটে বেশ কিছু পিটিসি বা পেড টু ক্লিক সাইট রয়েছে। সেই সাইটগুলিতে গিয়ে শুধু বিজ্ঞাপনগুলিতে ক্লিক করলেই টাকা পাবেন। তবে টাকা এখানে অনলাইন ট্রান্সফার হবে এবং বিদেশের কোনও সাইট হলে পেপ্যাল-এর মাধ্যমে হবে। তাই কাজ শুরু করার আগে একটি পেপ্যাল অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। এই পেপ্যাল বিদেশি মুদ্রাকে দেশি মুদ্রায় বদলে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করবে। 

৩) গ্যারাজ সেল— বিদেশে এটির প্রচুর প্রচলন রয়েছে। বাংলাদেশেও যে হয় না তা নয়, কিন্তু কম। সোজা কথায় কুইকার অথবা ওএলএক্স-এর অফলাইন সংস্করণ। এর জন্য বেশ কয়েকজন বন্ধুবান্ধব জুটিয়ে একটা নেটওয়র্ক বানিয়ে নিন। সেই নেটওয়র্ক থেকে বিক্রিযোগ্য জিনিসপত্র জুটিয়ে নিন। তার পর নিজের বাড়িতেই করুন সেকেন্ডহ্যান্ড জিনিসপত্র সেল। আত্মীয় এবং প্রতিবেশীদের মধ্যে ছড়িয়ে দিন। পরিচিতদের থেকে সেকেন্ডহ্যান্ড জিনিস কিনতে সবাই আগ্রহী হবেন। 

৪) ইকমার্স— কোনও ইকমার্স সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের সেলার হয়ে যান। যে প্রোডাক্ট সেল করতে চান সেগুলি হোলসেল মার্কেট থেকে সস্তায় কিনে আনুন। অথবা যদি নিজে কোনও বিশেষ প্রোডাক্ট বানাতে সক্ষম হন, তবে সেটিও ইকমার্স সাইটের মাধ্যমে বিক্রি করতে পারেন। আপনাকে কোথাও যেতে হবে না। ইকমার্স সাইটের প্রতিনিধিরাই এসে আপনার থেকে জিনিস নিয়ে যাবে। 

৫) অনলাইন টিচিং— বাড়িতে বসে অনলাইনেই ক্লাস নিতে পারেন। বিদেশের বহু সাইট রয়েছে যাঁরা এই পরিষেবা দিয়ে থাকেন এবং এখন এই কাজটি ভারতীয়দের মধ্যে খুব জনপ্রিয়। তবে এখানেও টাকা পেপ্যাল অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ট্রান্সফার করা হয়। 

৬) ক্যাপচা সমাধান— যাঁদের চোখ ভাল এবং যাঁরা বহুদিন ধরে অনলাইন সার্ফিং করে ক্যাপচা সমাধান করতে বেশ দক্ষ, তাঁরা শুধু এই কাজটি করেই প্রচুর টাকা আয় করতে পারেন। মেগাটাইপার্স, প্রোটাইপার্স ইত্যাদি সাইটগুলিতে গিয়ে ক্যাপচা সমাধান করতে হয়। কেউ প্রতি ১০০০ টেক্সটে ১ ডলার দেন তো কেউ ২ ডলার। 

৭) পেট ক্রেশ— যদি পোষ্য ভালবাসেন তো বাড়িতে খুলতে পারেন পেট ক্রেশ। পোষ্যদের ঘন্টা প্রতি বা দিন প্রতি দেখভাল করার জন্য নির্দিষ্ট পারিশ্রমিক নেবেন। আবার কেউ দূরে বেড়াতে যাওয়ার সময় পোষ্যকে কয়েকদিনের জন্য রেখে যেতে চাইলে এককালীন টাকার বিনিময়ে পরিষেবা দিতে পারেন। 

৮) থেরাপিস্ট/কাউন্সেলর— কোনও বিশেষ থেরাপি যদি জানা থাকে তবে কোথাও না গিয়ে বাড়িতে বসেই তা প্র্যাকটিস করতে পারেন। যেমন, টাচ থেরাপি, মিউজিক থেরাপি, চাইল্ড কাউন্সেলিং ইত্যাদি। 

৯) ইউটিউব চ্যানেল ওনার— ইউটিউব পার্টনার হয়ে, ইউটিউবে প্রতিদিন ভিডিও আপলোড করেও টাকা অর্জন করতে পারেন। এর জন্য একটা ডিজিটাল মুভি ক্যামেরা প্রয়োজন আর প্রয়োজন কিছু দারুণ ভাল আইডিয়ার। কোনও মজার ভিডিও বা রান্নার ভিডিও বা কোনও শিক্ষামূলক (ডিআইওয়াই) ভিডিও আপলোড করতে পারেন। 

১০) কনটেন্ট রাইটিং— যাঁরা ইংরেজিতে ভাল, তাঁরা বাড়িতে বসে বিভিন্ন ডিজিটাল মার্কেটিং কোম্পানির জন্য কনটেন্ট লিখতে পারেন। একটু অভিজ্ঞতা থাকলে এই করেই মাসে ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারেন।  

আরও পড়ুন

Advertisement (Adsense)