ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

চোখের জ্যোতি বাড়াবে সাধারণ ৭টি খাবার!

স্বাস্থ্য ডেস্ক
চোখের জ্যোতি বাড়াবে সাধারণ ৭টি খাবার!
সংগৃহীত : ছবি
Advertisement (Adsense)

শরীরের অন্যতম প্রধান অঙ্গ চোখ তাই চোখের যত্ন নেওয়া খুবই জরুরি। তথ্যপ্রযুক্তির এ যুগে কম্পিউটার কিংবা মোবাইল স্ক্রিনে অতিরিক্ত চোখ রাখার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আমাদের দৃষ্টিশক্তি। চোখের যত্ন না নিলে গ্লুকোমা, রাতকানা রোগ, চশমার পাওয়ার বেড়ে যাওয়া এবং চোখ শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। এজন্য ভিটামিন এ সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া প্রয়োজন। যেসব খাবারে ভিটামিন এ পাওয়া যায়-

গাজর

গাজরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘এ’ এবং বিটা ক্যারোটিন। চোখের ইনফেকশন প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে ভিটামিন ‘এ’ এবং বিটা ক্যারোটিন। দিনে যতটুকু ভিটামিন এ প্রয়োজন তার প্রায় ২০০ শতাংশ বেশি ভিটামিনে এ থাকে একটি গাজরে। এছাড়া এতে ভিটামিন বি, কে, ফাইবার এবং ম্যাগনেশিয়ামও থাকে। ভিটামিন এ রাতকানা রোগ হতে রক্ষা করে।

পালং শাক

পালং শাকেও প্রচুর ভিটামিন এ থাকে। পালং শাকে ভিটামিন এ’র পাশাপাশি আয়রনও থাকে যা চোখ ভাল রাখতে সাহায্য করে। মাত্র এক কাপ পরিমাণ পালং শাকে ১০০ শতাংশ ভিটামিন এ থাকে।

আম

আমাদের অন্যতম প্রধান ফল আম দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। এক কাপ পরিমাণে আমে ৩৫ শতাংশ ভিটামিন এ রয়েছে।

পেঁপে

পেঁপেতে নানা ধরনের পুষ্টি উপাদান ও খনিজ থাকে। এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং এনজাইম স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। দিনে যতটুকু ভিটামিন এ প্রয়োজন তার প্রায় ২৯ শতাংশ পাওয়া যায় পেঁপে থেকে।

মাছ

চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে এমন খাবারের মধ্যে মাছ সর্বোত্কৃষ্ট। মাছে রয়েছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। এ স্বাস্থ্যকর ফ্যাট দৃষ্টিশক্তি ও রেটিনার স্বাস্থ্য উন্নত করে। পাশাপাশি চোখের শুষ্কতা কমাতেও রাখে ভূমিকা। তাই সপ্তাহে তিনদিন খাদ্যতালিকায় মাছ রাখা যেতেই পারে।

ডিম 

ডিম চোখের জন্য উপকারী খাবারগুলোর মধ্যে অন্যতম। ডিমের কুসুমে রয়েছে ভিটামিন ‘এ’, লিউটেইন, জিজানথিন ও জিংক, যা চোখের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। ভিটামিন ‘এ’ কর্নিয়াকে সুরক্ষিত রাখে। অন্যদিকে লিউটেইন ও জিজানথিন বয়সজনিত কারণে দৃষ্টিহীনতা কমাতে সহায়তা করে। আবার জিংক রেটিনার সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে সহায়ক ভূমিকা রাখে। তাই রোজ একটি করে ডিম রাখুন খাদ্যতালিকায়।

বাদাম

চোখের জন্য উপকারী খাবারের মধ্যে বাদামও অন্যতম। আমন্ডে রয়েছে ভিটামিন ‘ই’। প্রতিদিন ভিটামিন ‘ই’-সমৃদ্ধ আমন্ড খেলে চোখে ঝাপসা দেখা ও দৃষ্টিহীনতার আশঙ্কা এড়ানো যায়। প্রতিদিন একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির ১৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন ‘ই’ গ্রহণ করা প্রয়োজন। আর ২৩টি আমন্ড বাদামে রয়েছে এ পরিমাণ ভিটামিন ‘ই’। আমন্ড ছাড়াও সূর্যমুখীর বীজ ও চীনাবাদামে রয়েছে ভিটামিন ‘ই’।

চোখের সুস্থতা ধরে রাখতে হলে সুষম খাদ্যাভ্যাসের দিকে নজর দিতে হবে। সেইসাথে মেনে চলতে হবে কিছু নিয়ম। রোদে বাইরে গেলে সানগ্লাস পরা জরুরি। ধূমপান বর্জন করতে হবে। সঠিক ওজন ধরে রাখা, খেলাধুলা, সাইক্লিং ও কম্পিউটারে বসে কাজ করার সময় আই গিয়ার ব্যবহার করতে হবে।

আরও পড়ুন

Advertisement (Adsense)